বুধবার, ৮ জুন, ২০২২

একিউট বা তীব্র এবং ক্রনিক প্যানক্রিয়াটাইটিস রোগ কি ?

প্যানক্রিয়াটাইটিস সেটা একিউট বা তীব্র এবং ক্রনিক যেটাই হোক না কেন সব অবস্থাতেই জটিল এবং ভয়ঙ্কর একটি রোগ হিসেবে বিবেচনা করে হয়ে থাকে এলোপ্যাথিক চিকিৎসা শাস্ত্রে। কারণ এই রোগের স্থায়ী সমাধান আজ পর্যন্ত এলোপ্যাথি আবিস্কার করতে পারেনি। আর তাইতো এই রোগের কোন স্থায়ী চিকিৎসা নেই বলে মানুষের মনে ভয় ঢুকিয়ে দিচ্ছে এলোপ্যাথিক চিকিৎসকরা। বছরের পর বছর ভুগতে ভুগতে এক সময় যখন অভিজ্ঞ কোন হোমিও ডাক্তারের চিকিৎসাধীন চলে আসে তখন তাদের ঘুম ভেঙে যায়। তখন তারা বুঝতে পারে, কি ভয়ানক কুচিকিৎসা আর অপচিকিৎসার শিকার তারা হয়েছে এযাবৎকালে। 

একসময় যখন প্রপার একটি হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেন তখন তারা বুঝতে পারেন, বর্তমান বিশ্বে একমাত্র হোমিওপ্যাথিই হলো প্যানক্রিয়াটাইটিস রোগের সর্বাধিক উন্নত চিকিৎসা আর হোমিও চিকিৎসকরাই হলেন বিশ্বের সবচেয়ে বড় মেডিসিন ডক্টর। তবে হ্যা, ইমার্জেন্সি অবস্থায় অর্থাৎ হাসপাতালে এই রোগের একটি তাৎক্ষণিক চিকিৎসা দিতে পারে এলোপ্যাথি যদিও স্থায়ীভাবে সারাতে পারে না। এবার আসুন, এই রোগ সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিই।
একিউট বা তীব্র এবং ক্রনিক প্যানক্রিয়াটাইটিস রোগ

অ্যাকিউট প্যানক্রিয়াটাইটিস

যে সকল কারণে উপরের পেটে মাঝারি হতে তীব্র ব্যথা হয় সেগুলির মধ্যে অ্যাকিউট প্যানক্রিয়াটইটিস বা প্যানক্রিয়াসের আকস্মিক তীব্র প্রদাহ অন্যতম। কোন কারণে আমাদের প্যানক্রিয়াসে আকস্মিক তীব্র প্রদাহ ঘটলে তাকে অ্যাকিউট প্যানক্রিয়াটাইটিস বলা হয়ে থাকে। এর ফলে কিডনি কাজ করা বন্ধ করে দিতে পারে বা হার্টফেল হতে পারে। বেশির ভাগ ক্ষেত্রে পিত্তনালির পাথর বা গলস্টোন ফলে অ্যাকুইট প্যানক্রিয়াটাইটিস জেগে উঠতে দেখা যায়। এ ছাড়া অতিরিক্ত মদ্যপান, রক্তে ক্যালসিয়ামের মাত্রা বৃদ্ধি, ডায়াবেটিস, অগ্ন্যাশয়ে আঘাত, এলোপ্যাথিক ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া, অতিরিক্ত ওজন, সার্জারি, ইনফেকশন, জন্মগত ত্রুটি, আলসার বা জিনগত কারণেও অগ্ন্যাশয়ের প্রদাহ জেগে উঠতে পারে। তবে এইগুলি মূলত এই রোগের মূল কারণ নয়।

ক্রনিক প্যানক্রিয়াটাইটিস

প্রচুর মদ্যপানের কারণে দীর্ঘমেয়াদী বা ক্রনিক প্যানক্রিয়াটিটিস জেগে উঠতে দেখা যায় প্রায় ক্ষেত্রেই। এছাড়াও এই রোগের বিভিন্ন কারণ থাকতে পারে। এটা দীর্ঘসময় ধরে থাকে এবং রিয়েল হোমিওপ্যাথিক ট্রিটমেন্ট ছাড়া এর ঠিক হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম থাকে। ক্রনিক প্যানক্রিয়াটাইটিস রোগীর ঘন ঘন পেটে ব্যথা হয়। খাদ্য হজম হয় না। ওজন কমে যায়। ফেনাযুক্ত পায়খানা হয়। ডায়াবেটিস হতে পারে।

প্যানক্রিয়াটাইটিস রোগের প্রকৃত কারণ, লক্ষণ ও উপসর্গ এবং জটিলতা সম্পর্কে পরবর্তী পর্বে থাকছে বিস্তারিত।
Dr. Delowar Jahan Imran
ডাঃ দেলোয়ার জাহান ইমরান
ডিএইচএমএস (বিএইচএমসি এন্ড হসপিটাল), ডিএমএস; ঢাকা
রেজিস্টার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক (রেজিঃ নং-৩৩৪৪২)
যোগাযোগঃ আনোয়ার টাওয়ার, আল-আমিন রোড, কোনাপাড়া, ডেমরা, ঢাকা।
Phone: +88 01671-760874; 01977-602004 (শুধু এপয়েন্টমেন্টের জন্য)
About Me: Profile ➤ Facebook ➤ YouTube ➤