শুক্রবার, ৬ আগস্ট, ২০২১

ঔষধ ছাড়াই কোভিড ১৯ এর প্রাকৃতিক চিকিৎসা ! COVID-19 কিউর ডাইট

ঔষধ ছাড়াই COVID-19 বা করোনা রোগীর প্রাকৃতিক চিকিৎসা পদ্ধতি নিয়ে ব্যাপক পরীক্ষা নিরীক্ষার পর আশানুরূপ ফলাফল পাওয়া যাচ্ছে যা রাসায়নিক বা এলোপ্যাথিক ঔষধের তুলনায় দুর্দান্ত কার্যকর এবং সহজ। কোভিড ১৯ সমস্যায় দক্ষ হোমিও চিকিৎসকের পরামর্শক্রমে চিকিৎসা নিলে খুব দ্রুত ফলাফল পাবেন এবং পোস্ট কোভিড সিনড্রোমে আক্রান্ত হওয়ারও কোন ঝুঁকি নেই। কিন্তু আপনি কোথাও যেতে পারছেন না সেই মুহূর্তে অথবা জ্বর, কাশি, সর্দি, ব্যথা বা কোভিড ১৯ এ আক্রান্ত হওয়ার প্রথম থেকেই ঘরে বসে নাচারোপ্যাথির এই পদ্ধতি অনুসরণ করতে পারেন। ম্যাজিকের মতো রেজাল্ট পাবেন ইনশা-আল্লাহ। 

COVID-19 কিউর ডাইট

ভাইরাস, জ্বর, কাশি, সর্দি, ব্যথা বা কোভিড১৯ রোগী প্রতিদিন ২০ মিনিট রোদের তাপ নিন আর নিচের থেরাপি অনুসরণ করুন -

জ্বর ১০০ এর নীচে রাখবে

  • ৬ পিস কালো গোল মরিচ, ৬ পিস তুলশি পাতা, কাচা হলুদ হাফ ইঞ্চি, লং ৪ পিস, আদা ১ চামচ, সব একসাথে মিশিয়ে পেস্ট করে। সকালে-দুপুরে-রাতে খাবার আগে খাবেন। এটা এক বেলার/দিনের জন্য দেয়া হল।
  • গরম পানি খাবেন ও গড়গড়া করে কুলি করুন দিনে ৪ বার।
  • যা যা খেতে হবে: ফল ভিটামিন সি- মাল্টা, কমলা, আনারস, আমলকি, ডাব, আনার।

প্রথম  দিন যা যা খেতে হবে 

  • তরল বা জুস খাবার।
  • যদি আপনার ওজন ৭০ কেজি হয় তাহলে ৭০ ÷ ১০ = ৭ গ্লাস। এর মানে হচ্ছে, সারাদিনে ৭ গ্লাস মাল্টা/কমলা/আনারস ফলের জুস + ৭ গ্লাস ডাবের পানি বা আনার ফলের জুস। 

দ্বিতীয় দিন যা যা খেতে হবে

  • তরল খাবার।
  • যদি আপনার ওজন ৭০ কেজি হয় তাহলে ৭০ ÷ ২০ = ৩.৫ গ্লাস। এর মানে হচ্ছে, সারাদিনে ৩.৫ গ্লাস মাল্টা/কমলা/আনারস ফলের জুস + ৩.৫ গ্লাস ডাবের পানি বা আনার ফলের জুস। 
  • সেইসাথে টমেটো + শসার সালাদ খেতে হবে। ওজন যদি হয় ৭০ কেজি তাহলে ৭০✕৫=৩৫০ গ্রাম খেতে হবে দুপুরে ও রাতে।

তৃতীয় দিন যা যা খেতে হবে 

  • সলিড খাবার।
  • যদি আপনার ওজন ৭০ কেজি হয় তাহলে ৭০ ÷ ৩০=২.৫ গ্লাস। এর মানে হচ্ছে, সারাদিনে ২.৫ গ্লাস মাল্টা/কমলা/আনারস ফলের জুস + ২.৫ গ্লাস ডাবের পানি বা আনার ফলের জুস।
  • সেইসাথে টমেটো + শসার সালাদ খেতে হবে। ওজন যদি হয় ৭০ কেজি তাহলে ৭০✕৫=৩৫০ গ্রাম খেতে হবে দুপুরে ও রাতে।
  • রাতে রান্না করা খিচুরি খেতে দিন।
  • গরম পানির ভাব নিন। ২ গ্লাস গরম পানিতে ১ চামচ কালিজিরার তেল, ৪ পিস লং এর গুড়া, ২ চিমটি হলুদ গুড়া, হাফ লেবু দিন। পানি গরম হলে ভাব নিন ৫ মিনিট। দিনে ৩ বার।

ফুসফুসে পানি জমা হলে কি করবেন?

  • নিউমোনিয়া বা ফুসফুসের ইনফেকসন বা শ্বাসকষ্ট থেকে বাচতে হলে, প্রতিদিন ১ চামুচ কাচা হলুদ, ১ গ্লাস গরম পানিতে ফুটাতে হবে,ফুটানো পানি অর্ধেক হয়ে আসলে, ঠান্ডা করে পান করুন। দিনে ৩ বার পান করেন, খাবারের ৩০ মিনিট আগে।
  • কফ জমে গেলে বুকে ৫ চামচ পেয়াজের রস খালি পেটে খেতে দিন।

মালিশ থেরাপি

  • বুকে ও পিঠে ৫ চামচ সরিষার, ৫ চামচ রসুন বাটা, ৫ মিনিট চুলায় গরম করুন, এরপর তেল এ মিশিয়ে এক চিমটি কর্পূর মিশিয়ে মালিশ করুন। দিনে দুইবার।
বিঃদ্রঃ আগে থেকেই দুরারোগ্য কোন রোগে আক্রান্ত রোগীদের ক্ষেত্রে বা যেকোন জটিল পরিস্থিতিতে রেজিস্টার্ড এবং দক্ষ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন প্রয়োজন বোধে নিকটস্থ হাসপাতালে যোগাযোগ করুন। ধন্যবাদ

যা যা জেনেছেন 

করোনার ঘরোয়া চিকিৎসা
Dr Imran
ডাঃ দেলোয়ার জাহান ইমরান
ডিএইচএমএস (বিএইচএমসি এন্ড হসপিটাল), ডিএমএস; ঢাকা
রেজিস্টার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক (রেজিঃ নং-৩৩৪৪২)
যোগাযোগঃ আনোয়ার টাওয়ার, আল-আমিন রোড, কোনাপাড়া, ডেমরা, ঢাকা।
Phone: +88 01671-760874; 01977-602004 (শুধু এপয়েন্টমেন্টের জন্য)
About Me: Profile ➤ Facebook ➤ YouTube ➤