সোমবার, ৩ আগস্ট, ২০২০

অল্প সময়ে ইনসুলিন ফ্রি হওয়ার হোমিওপ্যাথিক ম্যাজিক ট্রিটমেন্ট ! ডায়াবেটিস রোগের চিকিৎসা

ডায়াবেটিস রোগের চিকিৎসা এবং দ্রুত ডায়াবেটিস কমানোর উপায় নিয়ে অনেকেই চিন্তিত থাকেন। আজ আপনারা জানবেন, অল্প খরচে এবং অল্প সময়ে বহু বছর যাবৎ ইনসুলিন নিচ্ছেন এমন Diabetes রোগীরা কিভাবে প্রোপার হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসার মাধ্যমে ইন্সুলিন ফ্রি হবেন এবং ধীরে ধীরে এই সমস্যা থেকে কিভাবে সেরে উঠবেন কোন প্রকার জটিলতা ছাড়াই। এটি মূলত অল্প খরচে প্রাকৃতিক উপায়ে ডায়াবেটিস চিকিৎসা এবং ডায়াবেটিস সারানোর সবচেয়ে কার্যকর উপায়। তবে এর জন্য অবশ্যই রেজিস্টার্ড এবং দক্ষ একজন হোমিও চিকিৎসকের পরামর্শক্রমে চিকিৎসা নেয়া জরুরি। অন্যথায় আপনি হয়তো কোন ফলাফলই পাবেন না। এবার আসুন মূল বিষয়ে আসি- 

দীর্ঘদিন যাবৎ মেডিক্যাল মাফিয়ারা মানুষকে বুঝিয়ে আসছে ডায়াবেটিসে একবার আক্রান্ত হলে, সে রোগ থেকে রেহাই পাওয়া যায় না বরং এলোপ্যাথিক বা বিভিন্ন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াযুক্ত ক্ষতিকর রাসায়নিক ঔষধ সারা জীবন ধরেই নিয়ে যেতে হয়। নিজেকে শিক্ষিত পরিচয় দেয়া এলিট শ্রেণীর বহু অজ্ঞ লোকজনই তাদের অনুসরণ করে আসছে শুরু থেকেই কোন প্রকার যাচাই বাছাই করা ছাড়াই। বিনিময়ে দিন দিন আরো নানা জটিল পীড়ায় আক্রান্ত হয়ে দুঃসহ জীবন যাপন করে একসময় সুন্দর পৃথিবীর বুকে নরক যন্ত্রনা ভোগ করে করে একসময় পরপারে পাড়ি জমিয়েছে এবং এখনও সে ধারা অব্যাহত রয়েছে।

বিভিন্ন রাসায়নিক ঔষধ ক্রমাগত শরীরে প্রয়োগ করার ফলে মানুষ দিন দিন আরো জটিল রোগে আক্রান্ত হচ্ছে, এর সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মেডিসিনের সংখ্যাও। মূলত এটি হলো মেডিক্যাল মাফিয়াদের একটি বিজনেস পলিসি। রোগ নির্মূল না করে বরং রোগ নিয়ন্ত্রণ বা পুষে রাখার পদ্ধতি হলো তাদের ঔষধ ব্যবসার নীতি। মানুষের অজ্ঞতার সুযোগ নিয়ে তারা এটি করে আসছে যুগ যুগ ধরে। যাদের জন্য যে ঔষধের কোন প্রয়োজন নেই তাদেরকেও নানা প্রকার ক্ষতিকর ঔষধ প্রয়োগ করে রোগী বানিয়ে দিচ্ছে। অথচ প্রোপার হোমিও চিকিৎসার মাধ্যমে এবং আপনার দৈনন্দিন খাবার দাবার আর জীবন যাত্রায় কিছুটা পরিবর্তন আনলেই ডায়াবেটিসের মতো সমস্যা থেকে আপনি অনায়াসেই মুক্ত থাকতে পারেন। আজকাল মিডিয়ার সুবিধা সবার হাতের লাগালে চলে আসায় মানুষ সত্য মিথ্যা যাচাই করার সুযোগ পাচ্ছে।
অনেকেই জানেন না যে - ডায়াবেটিস সমস্যায় প্রথম দিকে কোন প্রকার রাসায়নিক ঔষধ শরীরে প্রয়োগ না করে অভিজ্ঞ হোমিও ডাক্তার দেখিয়ে প্রোপার হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা নিলে এই সমস্যাটি কয়েক মাসের মধ্যেই নির্মূল হয়ে যায়।
মানব দেহের অনেক দুরারোগ্য সমস্যার পেছনে দায়ী রয়েছে এই ডায়াবেটিস যেমন - চোখের সমস্যা, হৃদরোগ, স্ট্রোক বা কিডনির সমস্যা ইত্যাদি। ডায়াবেটিস হলে কেউ যদি প্রোপার হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসার মাধ্যমে সেটাকে না সারিয়ে এলোপ্যাথিক বিভিন্ন রাসায়নিক ঔষধের মাধ্যমে শুধু নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করে যায় তাহলে সেই সকল রাসায়নিক ঔষধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় ব্যাক্তির ভাইটাল ফোর্স বা জীবনী শক্তি দিন দিন দুর্বল থেকে দুর্বলতর হতে থাকে এবং যত দিন যেতে থাকে ততই নানা প্রকার দুরারোগ্য এবং জটিল স্বাস্থ্য সমস্যা শরীরে বাসা বাঁধতে থাকে। এভাবে চলতে থাকলে এক সময় একটি দুঃসহ জীবন নিয়ে চলতে হয়। আপনার আশেপাশে একটু চোখ কান খোলা রাখলেই এই রকম অনেক রোগী পেয়ে যাবেন যারা বেঁচে থেকেও নরক যন্ত্রণা সহ্য করে চলেছেন শুধু মাত্র সঠিক সময় সঠিক চিকিৎসাটি না পাওয়ার কারণে।
হোমিওপ্যাথিক ম্যাজিক ট্রিটমেন্ট
ডায়াবেটিস রোগীরা প্রথম দিকে কোন প্রকার এলোপ্যাথিক চিকিৎসা না নিয়ে অভিজ্ঞ হোমিও ডাক্তার কর্তৃক প্রোপার হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা নিলে অধিকাংশ রোগীরাই ৪-৬ মাসের মধ্যেই এই সমস্যা থেকে মুক্তি লাভ করেন। কিন্তু যারা বহুদিন যাবৎ ডায়াবেটিসে ভুগছেন এবং বছরের পর বছর নানা প্রকার রাসায়নিক ঔষধের মাধ্যমে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়ে আরো দূরারোগ্য জটিল রোগ-ব্যাধিতে আক্রান্ত হয়েছেন তাদের ক্ষেত্রে এই সমস্যা থেকে সেরে উঠতে কিছুটা সময়ের প্রয়োজন। তবে হোমিও চিকিৎসা শুরু করার কিছু দিনের মধ্যেই যারা ইনসুলিন ছাড়া এক দিনও থাকতে পারতেন না তাদের অধিকাংশই অল্প সময়ে ইনসুলিন ফ্রি হয়ে যান অর্থাৎ সুগার লেভেল স্বাভাবিক হয়ে আসায় তাদের ইনসুলিন নেয়ার আদৌ কোন প্রয়োজন পড়ে না। এর সাথে ভাইটাল ফোর্স অর্থাৎ জীবনীশক্তি দিন দিন বাড়তে থাকায় শরীরে শক্তি অনুভব করতে থাকেন। তখন তাদের দেহ এবং মনে সতেজতা এবং আনন্দ বিরাজ করে।

ডায়াবেটিস রোগীদের হোমিও চিকিৎসা নিলে সুবিধা

  • চিকিৎসা খরচ এলোপ্যাথির তুলনায় বহুগুন কম
  • ঔষধ খাওয়ার ক্ষেত্রে তেমন কোন ঝামেলা নেই
  • ঔষধ খুব দ্রুত কাজ করে এবং দ্রুত ফল দিতে শুরু করে
  • চিকিৎসার শুরুতেই শরীর ও মনে পরিবর্তন আসে
  • যারা ইনসুলিন নিচ্ছেন তারা খুব দ্রুত ইনসুলিন ফ্রি হয়ে যান
  • ঔষধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থেকে মুক্ত থাকা যায়
  • কোন জটিল রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি নেই
  • দ্রুত ভাইটাল ফোর্স অর্থাৎ জীবনীশক্তি উন্নত হতে থাকে
  • অন্যকোন জটিল রোগে আক্রান্ত থাকলে সেটিও ঠিক হয়ে আসে
  • খুব তাড়াতাড়ি শরীরে শক্তি ফিরে আসে
  • দেহ এবং মনে দ্রুত সতেজতা এবং আনন্দ ফিরে আসে
ডায়াবেটিসে আক্রান্ত রোগীদের মূলতঃ হোমিওপ্যাথিক পদ্ধতিতে একটি শক্তিশালী জেনেটিক ট্রিটমেন্ট দেয়া হয়ে থাকে। আপনারা হয়তো অনেকেই জানেন যে - মানব শিশু তাদের পিতামাতা থেকেই ক্রোমোজোমের মাধ্যমে তাদের পূর্ব পুরুষের রোগ ব্যাধি বা সেগুলির জেনেটিক ম্যাটেরিয়ালস পেয়ে থাকে। যেগুলিকে আমরা প্রকৃত রোগ বা True Disease বলে থাকি। বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথে বিভিন্ন কারণে যখন মানুষের ভাইটাল ফোর্স দুর্বল হতে থাকে তখন ভেতরে থাকা সেই প্রকৃত রোগটি বিভিন্ন উপসর্গ প্রকাশ করতে থাকে। আর সেই উপসর্গগুলিকে বিভিন্ন রোগের নামে নামকরণ করে থাকে বিভিন্ন ট্রিটমেন্ট সিস্টেম।

ভাইটাল ফোর্স যে যে কারণে দুর্বল হতে পারে 

নিম্নোক্ত কারণে ভাইটাল ফোর্স দুর্বল হলে ডায়াবেটিসের মতো জটিল সমস্যাগুলি জেগে উঠতে পারে
  • বিভিন্ন প্রকার ভ্যাকসিন বা টিকা
  • হাই-পাওয়ারের ক্ষতিকর সব এন্টিবায়োটিক
  • ক্রমাগত বিভিন্ন এলোপ্যাথিক ঔষধ সেবন
  • বড় ধরনের শারীরিক আঘাত
  • বড় ধরণের মানসিক আঘাত
  • এছাড়া বয়স বাড়ার সাথে সাথে স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণ না করা, অনিয়ন্ত্রিত জীবন-যাপন করা ইত্যাদি
হোমিওপ্যাথি ছাড়া অন্যান্য চিকিৎসা শাস্ত্রগুলি যেহেতু প্রকৃত রোগটি নির্ণয় না করে সেটি দ্বারা সৃষ্ট উপসর্গগুলিকে রোগের নাম দিয়ে চিকিৎসা করে তাই True Disease বা প্রকৃত রোগটি কখনই নির্মূল হয় না, যার ফলে উপসর্গ কিছু সময়ের জন্য দূর হলেও আবার জেগে উঠে। এভাবে ঔষধ খেয়ে খেয়ে থাকতে হয় আর রোগ জটিলতাও দিন দিন বাড়তে থাকে। কিন্তু হোমিওপ্যাথি মানুষের প্রকৃত রোগটির চিকিৎসা দিয়ে সেটিকে ঠিক করে বিধায় সৃষ্ট উপসর্গগুলি একেবারে দূর হয়ে যায়।
যারা ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হন তারা মূলত একাধিক প্রকৃত রোগ বা True Disease এর অধিকারী অর্থাৎ Multiple Miasm এর হয়ে থাকেন। তাই তাদের জীবন দর্শন, শিশুকাল থেকে এখন পর্যন্ত যাবতীয় রোগের ইতিহাস, পিতা-মাতা, নানা-নানী, দাদা-দাদীর হিস্ট্রি নিয়ে এক্সপার্ট একজন হোমিও চিকিৎসক তার মধ্যে থাকা প্রকৃত রোগগুলি নির্ণয় করে ধাপে ধাপে সেগুলিকে ঠিক করার জন্য পর্যায়ক্রমে ডায়নামিক হোমিওপ্যাথিক মেডিসিন প্রয়োগ করে থাকেন। একসময় তার শরীরের যাবতীয় রোগ ব্যাধির উপসর্গ নির্মূল হয়ে পূর্ণাঙ্গ সুস্বাস্থ্য ফিরে আসে।
ফ্যামিলি হিস্ট্রি নিয়ে প্রোপার হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসায় খুব দ্রুত দুর্বল জীবনীশক্তির ডায়াবেটিস পেসেন্টদের ভাইটাল ফোর্স শক্তিশালী করা হয় বলে ঔষধ প্রয়োগ করার সাথে সাথেই তারা শরীরে তার প্রতিক্রিয়া অনুভব করতে থাকে। এর সাথে চলে ডায়াবেটিস নির্মূলের একটি প্রাকৃতিক ম্যাজিক থেরাপি
বছরের পর বছর ধরে বিভিন্ন এলোপ্যাথিক বা রাসায়নিক ঔষধ শরীরে প্রয়োগের ফলে সৃষ্ট ট্রমা এবং পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দূর করে নির্জীব জীবনীশক্তিকে সঞ্জীবনী শক্তি দিতে অথাৎ দুর্বল ভাইটাল ফোর্সকে শক্তিশালী করতে অভিজ্ঞ হোমিও চিকিৎসকের পরামর্শক্রমে ডাইনামিক হোমিওপ্যাথিক ঔষধ নির্দিষ্ট নিয়মে নির্দিষ্ট মাত্রায় প্রয়োগ করার দরকার পড়ে কিছু কিছু পেসেন্টের। এছাড়াও কিছু ক্ষেত্রে আরো কিছু ম্যানেজমেন্টেরও প্রয়োজন হয় যা চিকিৎসক প্রয়োজনবোধে দিয়ে থাকেন। বিশেষ করে যারা দীর্ঘদিন ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণের জন্য নানা প্রকার অপচিকিৎসা নিয়েছেন এবং একের পর এক রাসায়নিক ঔষধ প্রয়োগ করে করে শরীরে আরো জটিল জটিল রোগ ব্যাধি যেমনঃ উচ্চ রক্ত চাপ, কিডনি সমস্যা, হার্টের সমস্যা ইত্যাদি সৃষ্টি করেছেন তাদেরকে নিবিড় যোগাযোগে রেখে ঔষধ প্রয়োগ করে করে স্বাভিবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে হয়।

আর যারা কোন ধরনের অপচিকিৎসার খুব বেশি শিকার হননি অর্থাৎ বছরের পর বছর ধরে বিভিন্ন এলোপ্যাথিক বা রাসায়নিক ঔষধ প্রয়োগের ফলে ভেতরে খুব বেশি মেডিসিনাল ট্রমা ও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া তৈরী করেননি অর্থাৎ আরো জটিল জটিল রোগ ব্যাধি যেমনঃ উচ্চ রক্ত চাপ, কিডনি সমস্যা, হার্টের সমস্যা ইত্যাদিতে আক্রান্ত হননি তারা খুব দ্রুত ইম্প্রোভমেন্টের দিকে আগায় যা হয়তো অনেকের কাছেই ম্যাজিকের মতো মনে হয়।

ডায়াবেটিস চিকিৎসায় হোমিওপ্যাথিক ঔষধ

হোমিওপ্যাথিতে ডায়াবেটিস চিকিৎসার জন্য রয়েছে বহু কার্যকর মেডিসিন। যেগুলি থেকে কেইস টেকিং এর মাধ্যমে পেশেন্টের জন্য নির্বাচিত ঔষধ যথাযথ ভাবে প্রয়োগ করা হয়ে থাকে। আর এই কাজটি করে থাকেন এক্সপার্ট একজন হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক। এখানে Synthesis Repertory থেকে ডায়াবেটিস চিকিৎসায় ব্যবহৃত হোমিওপ্যাথিক ঔষধগুলি দেয়া হলো -
ডায়াবেটিস চিকিৎসায় ব্যবহৃত হোমিওপ্যাথিক ঔষধ
এছাড়া ইউরিন চ্যাপ্টারে সুগারের জন্য আমরা পাই নিম্নুক্ত ঔষধগুলি-
Synthesis Repertory Urine Sugar
বলতে গেলে একমাত্র হোমিওপ্যাথি ছাড়া আর কোন ট্রিটমেন্ট সিস্টেমে ডায়াবেটিস চিকিৎসার জন্য এতো ঔষধ নেই। তবে এই সকল ঔষধ থেকে পেশেন্টের জন্য কেইস হিস্ট্রি নিয়ে নির্বাচিত ঔষধটি প্রয়োগ করতে হয় হোমিওপ্যাথির নির্দিষ্ট নিয়মনীতি মেনে। অন্যথায় আপনি কোন ফলাফল পাবেন না। তাই ডায়াবেটিস সমস্যায় কার্যকর হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা পেতে অবশ্যই রেজিস্টার্ড এবং অভিজ্ঞ কোন হোমিও চিকিৎসকের পরামর্শক্রমে চিকিৎসা নেয়া জরুরি।

যে বিষয়গুলি আপনি জেনেছেন -

  • প্রাকৃতিক উপায়ে ডায়াবেটিস চিকিৎসা
  • ডায়াবেটিস চিকিৎসায় নতুন উপায়
  • ডায়াবেটিসের প্রাকৃতিক চিকিৎসা
  • ডায়াবেটিস কমানোর উপায়
  • ডায়াবেটিস বেড়ে গেলে করনীয়
  • ডায়াবেটিস সারানোর উপায়
  • ডায়াবেটিস এর আধুনিক চিকিৎসা
  • ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে হোমিও
  • ইনসুলিন হোমিও
  • বহুমূত্র রোগের হোমিও ঔষধ
  • ডায়াবেটিস এ হোমিও চিকিৎসা
  • ডায়াবেটিসের সর্বশেষ নতুন চিকিৎসা
  • ডায়াবেটিস এর আধুনিক হোমিও চিকিৎসা
  • হোমিওপ্যাথিক ঔষধের মাধ্যমে ডায়াবেটিসের স্থায়ী মুক্তি
Dr Imran
ডাঃ দেলোয়ার জাহান ইমরান
ডিএইচএমএস (বিএইচএমসি এন্ড হসপিটাল), ডিএমএস; ঢাকা
রেজিস্টার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক (রেজিঃ নং-৩৩৪৪২)
যোগাযোগঃ আনোয়ার টাওয়ার, আল-আমিন রোড, কোনাপাড়া, যাত্রাবাড়ী-ডেমরা রোড, ঢাকা।
Phone: +88 01671-760874; 01977-602004 || E-mail : delowaridb@gmail.com
About Me: Profile ➤ Facebook ➤ YouTube ➤