সোমবার, ১৮ মে, ২০২০

শিশুর জন্মগত ত্রুটি এবং জন্মের পর মারাত্মক রোগ ব্যাধির প্রকৃত কারণ (PRS, PTS) ও সমাধান

শিশুর জন্মগত ত্রুটি Congenital anomalies এবং জন্মের পর নানা প্রকার মারাত্মক স্বাস্থ্য সমস্যা বা রোগ ব্যাধির কারণ এবং সমাধানের কার্যকর উপায় সম্পর্কে আজ আমরা জানবো। সাধারণত শিশুদের - Down Syndrome, Cerebral palsy, Autism, Juvenile Diabetes mellitus, Gilbert Syndrome, Thalaseemia, Hemophilia, Huntington's Chorea, SLE (Systemic lupus erythrematosus), Psoriasis, Neurofibromatosis, Congenital Heart Diseases ইত্যাদি সমস্যায় ভুগতে দেখা যায়। এছাড়াও রয়েছে আরো বহু শারীরিক বা মানুষিক প্রতিবন্ধকতা জনিত লক্ষণ এবং উপসর্গ। শিশুরা মূলত তাদের পিতা মাতা বা পূর্বপুরুষদের থেকে এই সকল দুরারোগ্য রোগের জেনেটিক মেটেরিয়ালস পেয়ে থাকে।

হোমিওপ্যাথি ছাড়া বিশ্বের অন্যান্য চিকিৎসা শাস্ত্রগুলি এই সমস্যার সম্পর্কে উপরি উপরি চিন্তা করে মূলতো সেগুলির পেছনের স্থানিক কিছু কারণ নির্ণয় করার চেষ্টা করে থাকে তবে বহু ক্ষেত্রে সেটাও নির্ণয়ে ব্যর্থ হয়ে সেগুলির সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে পারে না। বর্তমান বিশ্বে একমাত্র একটি চিকিৎসা শাস্ত্রই এই সমস্যাগুলির প্রকৃত কারণগুলি নিয়ে বহু কাল ব্যাপী গবেষণা করে সমাধানের কার্যকর উপায় উদ্ভাবন করেছে আর তা হলো হোমিওপ্যাথি। আজ মূলত আমরা শিশুদের জন্মগত বা জন্মের পর মারাত্মক স্বাস্থ্য সমস্যাগুলির পেছনের প্রকৃত কারণ কি হতে পারে সেগুলি নিয়েই আলোকপাত করবো। প্রধানত দুটি ফ্যাক্টর এই সমস্যাগুলির  পেছনে কাজ করে -
  • PRS - Post Rabies Syndrome
  • PTS - Post Trauma Syndrome
এছাড়া এর পেছনে দায়ী থাকে Morbific Noxious Agent - Psora or Psoric Miasm এবং Infectious Miasms - Sycosis & Syphilis Miasm And Tubercular Diathesis...(Read More). তবে আমরা আজ মূলত শিশুদের ক্ষেত্রে প্রকট PRS এবং PTS নিয়েই আলোচনা করবো যেগুলি হোমিওপ্যাথির নব্য আবিষ্কৃত রত্ন যা চিকিৎসা বিজ্ঞানী ডাঃ শ্যামল কুমার দাস কর্তৃক বহু বছরের গবেষণা লব্ধ বাস্তব এবং জীবন্ত ফলাফল।
শিশুর জন্মগত এবং জন্মের পর মারাত্মক রোগ ব্যাধির প্রকৃত কারণ ও সমাধান

Post Rabies Syndrome (PRS)

প্রথমেই আসুন পোস্ট রেবিস সিন্ড্রম সম্পর্কে আলোকপাত করা যাক। যেকোন Animal Bite (Dogs, Cats, Bates, Snakes etc) এবং ঐ Bite এর কারণে চিকিৎসায় ব্যবহৃত Vaccine বা টিকা জনিত সমস্যা, পরবর্তী সময়ে এবং পরবর্তী প্রজন্মগুলিতে যেসকল জটিল পরিস্থিতি তথা বিভিন্ন অস্বাভাবিক এবং ভয়ঙ্কর সমস্যার সৃষ্টি হয়, সেগুলিকে একত্রে Post Rabies Syndrome (PRS) আখ্যা দেয়া হয়েছে।
  • এই বিষে বিষাক্ত Zygote থেকে সৃষ্ট শিশু, কখনো কখনো মাকে গর্ভাবস্থায় ভীষণ কষ্ট দেয় অর্থাৎ গর্ভাবস্থায় মা ভীষণ কষ্ট ভোগ করেন যদিও সব ক্ষেত্রে এমনটি হয় না।
  • এই বিষাক্ত Zygote থেকে সৃষ্ট শিশু মারাত্মক দৈহিক ত্রুটি নিয়ে জন্ম নেয়, অবস্থা এমন ভয়ঙ্কর থাকে যে জন্ম নেয়ার সঙ্গে সঙ্গে NICU তে ভর্তি করতে হয়, কাউকে আবার তক্ষনি অপারেশন করতে হয়, যেমন CDH - Congenital Diaphragmatic Hernia, শিশু জন্ম নিয়েছে কিন্তু মলদ্বার হয়নি ইত্যাদি।
  • শিশু জন্ম নেয়ার আগের মুহূর্তে মায়ের পানি ভেঙে গিয়ে এমন ভযঙ্কর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছিল যে শিশুটিকে তক্ষনি পেট কেটে (Cesarean Section) না করলে মারা যেত।
  • শিশুটি মায়ের পেট থেকে বেরিয়ে এসেছিলো নীলবর্ণ, মৃতপ্রায় অবস্থায়, বাঁচবার কোন আশাই ছিল না।
  • এর আগে দুটি শিশু যথাক্রমে তিন মাসে এবং পাঁচ মাসে নষ্ট হয়ে গেছে। অনেক চিকিৎসার পর এই শিশুটি মৃতপ্রায় হয়ে জন্মেছে।
  • আবার এমন বিষাক্ত Zygote থেকে সৃষ্ট শিশু জন্ম নিয়েছে দুরারোগ্য Genetic Disease নিয়ে যেমনঃ Down Syndrome, Cerebral palsy, Autism, Juvenile Diabetes mellitus, Gilbert Syndrome, Thalaseemia, Hemophilia, Huntington's Chorea, SLE (Systemic lupus erythrematosus), Psoriasis, Neurofibromatosis, Congenital Heart Diseases etc.
  • কখনো এমন বিষাক্ত Zygote থেকে সৃষ্ট শিশু Pancreas এর তীব্র সমস্যা নিয়ে জন্মায়। এই সমস্যা পরবর্তী সময়ে Acute pancreatitis, Chronic pancreatitis, Pancreatic carcinoma ইত্যাদি রূপে প্রকাশ পায়।
  • Post Rabies Syndrome (PRS) প্রকট, এমন শিশুরা মায়ের গর্ভে অবস্থান কালে মাকে ভীষণ কষ্ট দেয়, Neonatal period এও মাকে ভীষণ কষ্ট দেয় যেমনঃ দিবারাত্র ভীষণ কান্না, যার জন্য মায়ের খাওয়া-ঘুম থাকে না, আবার হঠাৎ হঠাৎ এমন ভয়ংকর অসুস্থ হয়ে যায় যে চিকিৎসকের নির্দেশে তক্ষনি হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়। এই সকল শিশু অপ্রতুল Vital Force নিয়ে জন্মায় যার কারণে তাদের Immune System খুব দুর্বল থাকে ফলে এরা খুব সহজেই বিভিন্ন Infectious disease (Severe Pneumonia, Bronchitis, Typhoid, Gastroenteritis, Cold, Cough, Fever, Measles, Mumps, Pox, Tonsillitis, Cholera, Malaria etc) এ আক্রান্ত হয় এবং প্রত্যেকটি Infectious disease ই দ্রুত ভয়ঙ্কর রূপ নেয়।
  • আবার এমনও হতে পারে যে জন্মের সময় একটু সমস্যা ছিল বা ছিল না কিন্তু কিছু দিন পর ক্যান্সার বা ক্যান্সারের মতো ভয়ঙ্কর রোগ শুরু হলো।
এছাড়া সারাটা জীবন একটা না একটা সমস্যা লেগেই থাকে, সুস্থতার আনন্দ সৃষ্টিকর্তা তাদের জন্য মঞ্জর করেননি। এদের বয়স যত বাড়তে থাকে এদের রোগের জটিলতাও বাড়তে থাকে, কারণ PRS প্রকট এমন শিশু বা মানুষেরা যখন কোন দৈহিক বা মানুষিক সমস্যার চিকিৎসার জন্য বিভিন্ন Therapeutic System এর চিকিৎসকের কাছে যান, তারা Symptomatic বা উপরি উপরি চিন্তা করে লক্ষণ ভিত্তিক চিকিৎসা দিয়ে তাৎক্ষণিক আরাম দিয়ে পেসেন্টকে সন্তুষ্ট করেন কিন্তু যে কারণে ঐ কষ্টকর লক্ষণগুলির সৃষ্টি, সেটির কোন প্রতিকার করা হয় না বলে মূল সমস্যা জটিল থেকে জটিলতর এবং সবশেষে জটিলতম অবস্থায় পৌঁছায়। তখন চিকিৎসকরা বলেন - "বয়স হয়েছে, আমরাও যথাসাধ্য চেষ্টা করেছি, বাড়িতে নিয়ে গিয়ে ভালোমন্দ খেতে দিন।"
এছাড়া Post Rabies Syndrome (PRS) প্রকট নিয়ে জন্মানো শিশুদের মধ্যে বিভিন্ন অস্বাভাবিকতা দেখা যায় যেমন -
  • ভয়ঙ্কর দৈহিক পরিস্থিতি নিয়ে শিশুটি ভুমিষ্ঠ হয়েছে
  • জন্মাবার পর দীর্ঘক্ষণ কান্না করেনি, এমনকি অনেক চেষ্টার পরও
  • দীর্ঘক্ষণ পায়খানা প্রস্রাব করেনি
  • স্তনপান করেনি বরং বলা ভালো স্তনপান করবার শক্তিটুকু ছিল না
  • মস্তিষ্কে বা অন্য কোন অঙ্গে বড় টিউমার নিয়ে জন্মেছে
  • অসামঞ্জস্য দৈহিক গড়ন
  • শিশুটি ভূমিষ্ঠ হয়েছে দাঁত, চুল, দাঁড়ি, গোঁফ ইত্যাদি নিয়ে
  • জন্ম সময়ে শিশুটির মলদ্বার ছিল না
  • শিশুটি জন্মেছে মাথাটি অস্বাভাবিক বড় 
  • এমন বিপদজনক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় যে EDD [Expected date of delivery] এর ১ থেকে ২ মাস পূর্বেই গর্ভের শিশুকে বের করে নিতে হয় (Cesarean Section) অন্যথায় শিশুটির জীবন সংশয় দেখা দিতে পারে
  • শিশুটি জন্ম নেয়ার পর থেকে বা ১-২ দিন পর থেকে দিবারাত্র অবিরাম কান্না দীর্ঘদিন ধরে, কোন কিছুতেই কান্না বন্ধ হতো না, বেদনানাশক বা অচেতন করার ঔষধ না দিলে 
এছাড়া আরো যে যে কারণে Post Rabies Syndrome (PRS) সদৃশ পরিস্থিতি তৈরী হয় -
  • শিশুটি গর্ভে আসার আগে বাবা অথবা মা খুব কঠিন রোগের জন্য প্রচুর ঔষধ খেয়েছিলেন 
  • শিশুটি জন্মগ্রহণ করার পর বাবা অথবা মায়ের ক্যান্সার ধরা পড়েছে
  • এই শিশুটি গর্ভে আসার পূর্বে পরপর তিনবার বিভিন্ন সময়ে বা মাসে Spontaneous Abortion হয়েছে বলে প্রচুর ঔষধ খাওয়ার পর এই শিশুটি জন্মেছে
  • গর্ভের শিশুটিকে অনাকাঙ্খিত মনে করে বিভিন্ন ঔষধ খেয়ে Induced Abortion করার চেষ্টা হয়েছিল কিন্তু গর্ভপাত হয়নি 
  • পাঁচ বছর আগে বিয়ে হলেও কোন সন্তান হয়নি বলে প্রচুর ঔষধ খেয়ে এই শিশুটি জন্মেছে
  • বিষধর সাপের দংশন এবং দংশনজনিত চিকিৎসার পর বিভিন্ন জটিল সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে
  • মায়ের ছোট বেলা অর্থাৎ প্রথম মাসিকের আগে থেকেই সাদা স্রাবের সমস্যা ছিল 
  • মায়ের প্রথম মাসিকে প্রচন্ড ব্যথা (Dysmenorrhoea) ছিল।

Post Trauma Syndrome (PTS)

Trauma: 
  • Mental Shock
  • Physical illness
A very difficult or unpleasant experience that causes someone to have mental or emotional problems usually for a long time.

Medical: 
  • A serious injury to a person's body.
  • An injury (such as wound) to living tissue caused by extrinsic agent.
  • A disordered psychic or behavioral state resulting from severe mental or emotional stress or physical injury.
  • An agent, force or mechanism that causes trauma.
Here "Trauma" means effect of different ailments and different medicines used for the treatment for long time on the individual and "Post Trauma Syndrome" means complications after multiple treatment by which disappearance of primary manifestations of the ailments through unscientific way.
শিশুরা PTS পেয়ে থাকে বংশগতির মাধ্যমে, গর্ভে অবস্থান কালে এবং জন্ম নেয়ার পর থেকে 
  • বংশগতির মাধ্যমে : শিশুটি গর্ভে আসার অনেক আগে থেকে হুবু  বাবা-মা অথবা যেকোন একজনের বিভিন্ন ধরণের স্বাস্থ্য সমস্যার জন্য বিভিন্ন ধরণের চিকিৎসা চলছিল
  • গর্ভে অবস্থান কালে : মায়ের বিভিন্ন সমস্যার জন্য বিভিন্ন বা একটি বা দুটি ঔষধ লাগাতার খেতে হয়েছে
  • জন্ম নেয়ার পর : ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর থেকে ভয়ংকর না হলেও পেটের দোষ, ঠান্ডার দোষ  ইত্যাদির জন্য লাগাতার অথবা প্রায় প্রতিদিন ঔষধ খাওয়ার ফলে PTS উৎপন্ন হয়। 

শিশুর জন্মগত এবং জন্মের পর মারাত্মক রোগ ব্যাধির চিকিৎসা

শিশুদের এই সকল রোগের সর্বাধিক কার্যকর চিকিৎসা নিশ্চিত করছে হোমিওপ্যাথি। পৃথিবীতে হোমিওপ্যাথি ছাড়া অন্য সকল চিকিৎসা শাস্ত্র উপরি উপরি চিন্তা করে চিকিৎসা কার্য্য সম্পাদন করে থাকে যার কারণে মূল থেকে রোগ নির্মূলে ব্যর্থ হয় তারা। তাছাড়া হোমিওপ্যাথি ছাড়া অন্যান্য চিকিৎসা শাস্ত্রে বহু দুরারোগ্য বা ক্রনিক রোগের চিকিৎসাই নেই। একমাত্র হোমিওপ্যাথি রোগের বাস্তব কারণ অনুসন্ধান করে মূল থেকে যেকোন দুরারোগ্য রোগ নির্মূলের চিকিৎসা দিয়ে থাকে। আর এই কারণেই শিশুর জন্মগত এবং জন্মের পর মারাত্মক রোগ ব্যাধির সবচেয়ে কার্যকর এবং সুচিকিৎসা নিশ্চিত করছে হোমিওপ্যাথি। তবে এর জন্য অবশ্যই এক্সপার্ট কোন হোমিও চিকিৎসকের পরামর্শক্রমে চিকিৎসা নেয়া জরুরী।
Dr Imran
ডাঃ দেলোয়ার জাহান ইমরান
ডিএইচএমএস, ডিএমএস, বিএসসি এন্ড এমএসসি; ঢাকা
রেজিস্টার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক (রেজিঃ নং-৩৩৪৪২)
যোগাযোগঃ আনোয়ার টাওয়ার, আল-আমিন রোড, কোনাপাড়া, যাত্রাবাড়ী-ডেমরা রোড, ঢাকা।
Phone: +88 01671-760874; 01977-602004 || E-mail : delowaridb@gmail.com
About Me: Profile ➤ Facebook ➤ YouTube ➤