সোমবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০২০

মুক্তিযুদ্ধের বন্ধু শ্রীমতি ইন্দিরা গান্ধী স্মৃতি সম্মাননা ২০২০ পেলেন ডাঃ দেলোয়ার জাহান ইমরান

মুক্তিযুদ্ধের বন্ধু শ্রীমতি ইন্দিরা গান্ধী স্মৃতি সম্মাননা ২০২০ পেলেন ডাঃ দেলোয়ার জাহান ইমরান। আনোয়ার টাওয়ার, আল-আমিন রোড, কোনাপাড়া, যাত্রাবাড়ী-ডেমরা রোড, ঢাকা।

দুরারোগ্য রোগের চিকিৎসা সেবায় বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ মুক্তিযুদ্ধের বন্ধু শ্রীমতি ইন্দিরা গান্ধী স্মৃতি সম্মাননা ২০২০ পেলেন ডাঃ দেলোয়ার জাহান ইমরান। 

১২ ডিসেম্বর ২০২০ তারিখে "বাংলাদেশ স্বপ্নকুঁড়ি ফাউন্ডেশন" এ সম্মাননা প্রদান করেন।

বাংলাদেশ শিশু কল্যাণ পরিষদের সম্মেলন কক্ষে স্বপ্নকুঁড়ি ফাউন্ডেশন মনোজ্ঞ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সাবেক মন্ত্রী নাজিম উদ্দিন আল আজাদ, অর্থ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব পীরজাদা শহিদুল হারুন। অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অথিতি তাঁর হাতে এ পুরস্কার তুলে দেন।
মুক্তিযুদ্ধের বন্ধু শ্রীমতি ইন্দিরা গান্ধী স্মৃতি সম্মাননা ২০২০
বিশ্বের অন্যান্য চিকিৎসা ব্যবস্থায় দুরারোগ্য রোগগুলি নির্মূলের ক্ষেত্রে তেমন কোন সফলতা দেখাতে না পারলেও হোমিওপ্যাথি বরাবরই এক্ষেত্রে শুরু থেকেই সফলতা দেখিয়ে আসছে। মেডিক্যাল মাফিয়াদের ক্রমাগত অপপ্রচার সত্ত্বেও হোমিওপ্যাথি বিশ্বের প্রায় ৮০টিরও বেশি দেশে ব্যাপক জনপ্রিয়। অন্যান্য চিকিৎসা পদ্ধতিগুলি যেখানে রোগ পুষে রাখে এবং ক্রমাগত ঔষধ প্রয়োগ করে করে মানব জীবনকে বিপর্যস্ত করে তুলছে সেখানে হোমিওপ্যাথি পার্শপ্রতিক্রিয়াহীন ঔষধ প্রয়োগের মাধ্যমে রোগ নির্মূলের ক্ষেত্রে ব্যাপক সাফল্য দেখিয়ে আসছে শুরু থেকেই। অভিজ্ঞ হোমিও চিকিৎসকগণ সারিয়ে তুলছেন অন্যান্য চিকিৎসা পদ্ধতিগুলির নাম দেয়া দুরারোগ্য রোগগুলি। কারণ হোমিওপ্যাথি অন্যান্য চিকিৎসা পদ্ধতিগুলির মত রেজাল্ট অফ ডিজিসের চিকিৎসা করে না বরং DNA তে স্বক্রিয় মানব দেহের True Diseases বা প্রকৃত রোগগুলির চিকিৎসা করে থাকে। 

আমাদের DNA তে বর্তমান True Disease মূলতঃ আমাদের শরীরের নানা অঙ্গে বিভিন্ন লক্ষণ ও উপসর্গ তৈরি করে থাকে তার তীব্রতা অনুসারে। হোমিওপ্যাথি ছাড়া অন্যান্য ট্রিটমেন্ট সিস্টেম মূলতঃ স্থানিক ভাবে প্রকাশিত লক্ষণ ও উপসর্গকে রোগের নাম দিয়ে স্থানিক ভাবে সেগুলির চিকিৎসা করে থাকে তাই সেগুলি স্থায়ীভাবে দূর হয় না বরং সেসকল চিকিৎসা শাস্ত্রের উদ্ভাবিত ওয়ান টাইম ঔষধগুলিই বার বার প্রয়োগ করে করে রোগ নিয়ন্ত্রণে রাখতে হয়। যেমন আইবিএস এর ক্ষেত্রে পেটের নানা লক্ষণে - আমাশয়ের ক্ষেত্রে আমাশয়ের ওয়ান টাইম মেডিসিন, ডায়রিয়ার লক্ষণে ডায়রিয়ার ওয়ান টাইম মেডিসিন, কোষ্ঠকাঠিন্যের লক্ষণে কোষ্ঠকাঠিন্যের ওয়ান টাইম মেডিসিনগুলিই ক্রমাগত জীবনভর খেয়ে যেতে বলে। কিন্তু রোগ নির্মূল তো দূরের কথা বরং ঔষধ খেয়ে সাময়িক আরাম পেলেও রোগ জটিলতা দিন দিন বাড়তে থাকে।

হোমিওপ্যাথি স্থানিক ভাবে রোগের লক্ষণের চিকিৎসা না দিয়ে রোগীর DNA তে স্বক্রিয় কোন True Disease এর কারণে তার আইবিএস সমস্যা হলো সেটিকে নির্ণয় করে তার চিকিৎসা দিয়ে থাকে। তখন দেখা যায় আইবিএসসহ রোগীর শরীরে আরো যত উপসর্গ থাকে সবগুলি নির্মূল হয়ে রোগী সুস্বাস্থ ফিয়ে পায়। ঠিক তেমনি ভাবে অন্যান্য সকল দুরারোগ্য রোগের ক্ষেত্রেই হোমিও তার নীতি অনুসারে চিকিৎসা দিয়ে শুরু থেকেই সফলতা দেখিয়ে আসছে। তবে এর জন্য অবশ্যই রেজিস্টার্ড এবং দক্ষ একজন হোমিও চিকিৎসকের পরামর্শক্রমে চিকিৎসা নেয়া জরুরী।
Dr Imran
ডাঃ দেলোয়ার জাহান ইমরান
ডিএইচএমএস (বিএইচএমসি এন্ড হসপিটাল), ডিএমএস; ঢাকা
রেজিস্টার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক (রেজিঃ নং-৩৩৪৪২)
যোগাযোগঃ আনোয়ার টাওয়ার, আল-আমিন রোড, কোনাপাড়া, যাত্রাবাড়ী-ডেমরা রোড, ঢাকা।
Phone: +88 01671-760874; 01977-602004 || E-mail : delowaridb@gmail.com
About Me: Profile ➤ Facebook ➤ YouTube ➤