শুক্রবার, ১০ এপ্রিল, ২০২০

ভেরিকোসিল Varicocele এর হোমিওপ্যাথিক পেটেন্ট ঔষধ কি আদৌ কার্যকর ?

ভেরিকোসিলের জন্য Dr. Reckeweg R42, Pekana PK 40, Rax 66, HomyoXpert Varicocele Homeopathic Medicine ইত্যাদি হলো কিছু ঔষধ কোম্পানির তৈরী করা কয়েকটি হোমিওপ্যাথিক পেটেন্ট ঔষধ। ১৫% - ২০% পুরুষই ভেরিকোসিল সমস্যায় আক্রান্ত হয়ে থাকেন এবং আক্রান্তদের মধ্যে অনেকেই নানা জটিলতায় ভুগে থাকেন তাছাড়া প্রতি ১০ জন Varicocele সমস্যায় আক্রান্ত পেসেন্টের মধ্যে ৪ জনই বন্ধ্যাত্বের সমস্যায় আক্রান্ত হয়ে থাকেন। তাই ঔষধ কোম্পানিগুলি এই সমস্যার জন্য ঔষধ তৈরি করবে এটা অস্বাভাবিক কিছু নয়।

যদিও Dr. Reckeweg R42, Pekana PK-40, Rax 66 ঔষধগুলি পায়ের ভেরিকোস ভেইন বা শিরা স্ফীতির জন্য তৈরী করা হয়েছে কিন্তু একই প্রকৃতির রোগ হওয়ায় ঔষধ কোম্পানিগুলির মার্কেটিংয়ের লোকজন সেগুলি ভেরিকোসিল চিকিৎসার ক্ষেত্রে ব্যবহারের জন্যও মার্কেটিং করে থাকে। তাছাড়া কিছু ঔষধ সরাসরি ভেরিকোসিলের জন্য তৈরী করা যেমন : HomyoXpert Varicocele Medicine.
এখন প্রশ্ন হলো এই ঔষধগুলি কি আদৌ ভেরিকোসিল নির্মূল করে ?
যদি এক কথায় উত্তর দিতে হয় তবে ৯৯.৯% ক্ষেত্রেই উত্তর হবে - না !
হ্যা, আপনি ঠিকই পড়েছেন। এই ঔষধগুলি হলো শিরাস্ফীতির ক্লিনিক্যাল আইটেম যেগুলি মূলত বেশ কিছু হোমিওপ্যাথিক ঔষধের কম্বিনেশন। এখানে কম্বিনেশনে যে ঔষধগুলি ব্যবহার করা হয়েছে সেগুলির প্রত্যেকটির আলাদা লক্ষন এবং উপসর্গ রয়েছে। ভেরিকোসিলের জন্য এভাবে ঔষধ প্রয়োগে রোগ নির্মূল হতে দেখা যায়নি বরং কিছুটা উপশম দিলেও রোগ জটিলতা দিন দিন বাড়তে দেখা গেছে। অর্থাৎ আপনার রোগ যত পুরাতন হবে তার জটিলতা দিন দিন বাড়তে থাকবে। আসুন জার্মানির কম্বিনেশন পেটেন্ট ঔষধ Dr. Reckeweg R42 এবং Pekana PK-40 এর উপাদানগুলি দেখি -
Aesculus Belladonna Calcium fluoratum
Carduus marianus Hamamelis Mezereum
Placenta Secale Vipera berus
উপরে উল্লেখিত ঔষধগুলি দিয়েই মূলত Dr. Reckeweg R 42 এবং Pekana PK 40 কম্বিনেশন ক্লিনিক্যাল আইটেম তৈরী করা হয়েছে। এই ঔষধগুলির নিম্নতম শক্তি ব্যবহার করা হয়েছে Dr. Reckeweg R42 কম্বিনেশন তৈরিতে। আবার পাকিস্তানের Rax 66 কম্বিনেশনে ব্যবহৃত হোমিও ঔষধগুলি হলো -
Populus Aesculus Calcium fluoratum
Hamamelis Pulsatilla Silicea
মূলত স্থানিক যে লক্ষণ প্রকাশ করে থাকে সেগুলি বিবেচনা করেই এই ঔষধগুলির নির্দিষ্ট একটি শক্তি ব্যবহার করা হয়েছে। এই যেমন একটি ব্যথা কমাবে, একটি চুলকানি কমাবে, একটি ফোলা কমাবে, একটি রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখবে ইত্যাদি। কিন্তু রোগ আদৌ নির্মূল করে না। এই ঔষধের কম্বিনেশন সাময়িক আরাম দিয়ে থাকে মাত্র। আবার কারো কারো ক্ষেত্রে সেটিও দেয় না। তবে রোগটি নতুন হলে দীর্ঘ মেয়াদী ব্যবহারে মাত্র কিছু ক্ষেত্রে প্রায় ১০০০ জনের মধ্যে ২/১ জনের ঠিক হয়ে যেতে পারে সৌভাগ্যক্রমে। কিন্তু দীর্ঘ মেয়াদী এই সকল কম্বিনেশন ঔষধ ব্যবহার আদৌ নিরাপদ নয়।
এই সকল পেটেন্ট ঔষধ মূলত হোমিওপ্যাথির নিয়মনীতির বহির্ভুত তাই এভাবে তৈরীকৃত পেটেন্ট কম্বিনেশন কোন হোমিও ঔষধ বলে বিবেচিত হয় না। বহু মানুষের মধ্যেই গোপনে নিজে নিজে ঔষধ কিনে খাওয়ার একটা প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়। এই চিন্তাধারা থেকেই কিছু ঔষধ প্রস্তুতকারক কোম্পানী এই ধরণের পেটেন্ট ঔষধ তৈরী করে থাকে। 
হোমিওপ্যাথির ক্ষেত্রে রোগীর কেইস টেকিং এর উপর ভিত্তি করে ঔষধ এবং ঔষধের নির্দিষ্ট শক্তি প্রয়োগ করে থাকেন অভিজ্ঞ চিকিৎসকগণ। তাছাড়া রোগীর রোগের পর্যায় ও তীব্রতাভেদে সময়ে সময়ে ঔষধের শক্তি বা পোটেন্সি পরিবর্তন করা হয়ে থাকে এবং রোগী ধীরে ধীরে সুস্থতার দিকে আগায় এবং একসময় সুস্থতা লাভ করে থাকেন। কিন্তু ভেরিকোসিলের ক্ষেত্রে ব্যবহৃত ক্লিনিক্যাল আইটেমে বহু ক্ষেত্রেই রোগীর উপযোগী নির্দিষ্ট ঔষধগুলি এবং ঔষধের নির্দিষ্ট শক্তি থাকে না বিধায় সেগুলি  সাময়িক সময়ের জন্য কিছুটা উপশম বা আরাম দিলেও অধিকাংশ ক্ষেত্রেই রোগ আরোগ্যে ব্যর্থ হয়।
কিছু কিছু পেটেন্ট হোমিওপ্যাথিক ঔষধ অন্যান্য কিছু রোগের ক্ষেত্রে কিছুটা ফলাফল দিলেও ভেরিকোসিলের ক্ষেত্রে তেমনটি দেখা যায়নি। তাই ভেরিকোসিল সমস্যা নির্মূলের জন্য অবশ্যই অভিজ্ঞ কোন হোমিও চিকিৎসকের পরামর্শক্রমে চিকিৎসা নেয়া জরুরি। চিকিৎসক আপনার উপযোগী ঔষধ নির্দিষ্ট শক্তিতে এবং নির্দিষ্ট মাত্রায় প্রয়োগ করে করে ইম্প্রোভমেন্টে নিয়ে যাবেন এবং প্রয়োজন মতো ঔষধের শক্তি পরিবর্তন করে সামনে আগাবেন। এভাবেই মূলত ভেরিকোসিলের সমস্যা স্থায়ীভাবে নির্মূল করা হয়ে থাকে।
Dr Imran
ডাঃ দেলোয়ার জাহান ইমরান
ডিএইচএমএস, ডিএমএস, বিএসসি এন্ড এমএসসি; ঢাকা
রেজিস্টার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক (রেজিঃ নং-৩৩৪৪২)
যোগাযোগঃ আনোয়ার টাওয়ার, আল-আমিন রোড, কোনাপাড়া, যাত্রাবাড়ী, ঢাকা।
ফোন : ০১৬৭১-৭৬০৮৭৪ এবং ০১৯৭৭-৬০২০০৪
প্রোফাইল ➤ ফেইসবুক ➤ ইউটিউব ➤