সোমবার, ১৩ এপ্রিল, ২০২০

ভেরিকোসিলের মেডিক্যাল টেস্ট ও গ্রেড নির্ণয় Varicocele Diagnosis Tests & Grade

ইতিমধ্যে আপনারা জেনেছেন পুরুষদের ভেরিকোসিল হলে কি কি লক্ষণ এবং উপসর্গ দেখা দিয়ে থাকে। এবার আমরা জানবো অন্ডকোষে& Varicocele হয়েছে আপনি বুঝবেন কিভাবে অর্থাৎ ভেরিকোসিলের মেডিক্যাল টেস্ট ও গ্রেড নির্ণয় পদ্ধতি Diagnosis Tests and Grade সম্পর্কে। মূলত কিছু লক্ষণ দেখে আপনি অনুমান করতে পারেন যেমন - স্ক্রোটামের ভেতর শিরাতে রক্ত জমে গিয়ে ফুলে উঠবে। রাতের বেলায় ফোলা থাকবে না। কারো ক্ষেত্রে ব্যথা অথবা জ্বালাপোড়া হতে পারে। স্ক্রোটাম বা অন্ডথলি ঝুলে যাবে। কুঁচকির দিকে ব্যথা অনুভত হতে পারে।

তবে মেডিক্যাল টেস্ট করে সহজেই এটি নির্ণয় করা যায়। চিকিৎসক Ultrasound করে ভেরিকোসিল কন্ফার্ম করতে পারেন। এটি আবার Sonography or Ultrasonography নামেও পরিচিত। এখানে মূলতঃ সেখানকার ছবি নেয়ার জন্য শরীরের টিস্যুতে উচ্চ ফ্রিকুয়েন্সির শব্দ তরঙ্গ (High frequency sound waves) প্রবেশ করানো হয়। তবে যে নামে চিকিৎসকরা আপনাকে টেস্টটি লিখে দিবেন তা হল - USG of Scrotum.
ডায়াগনস্টিক সেন্টারে যদি আপনি আল্ট্রাসনোগ্রাম করেন তাহলেও কিছু ক্ষেত্রে ভালোভাবে সেটা নির্ণয় নাও হতে পারে। এমন কিছু রিপোর্টও আমি দেখেছি যেগুলিতে ভুল রেজাল্ট ছিল। এর কারণ হলো, যিনি টেস্ট করবেন তিনি যদি রেডিওলোজি ও ইমেজিং এ দক্ষ না হন তাহলে হয়তো আপনাকে গদবাধা একটি রিপোর্ট ধরিয়ে দিবে। তাই স্ক্রোটামের আল্ট্রাসনোগ্রাম করতে হলে অবশ্যই ভালো একটি ল্যাব থেকে করা জরুরী। এখানে শিরার প্রশস্ততা অনুসারে ভেরিকোসিলের গ্রেড নির্ধারণ করা হয়ে থাকে।
Varicocele Test Name: USG of Scrotum
-----------------------------------------------------
Grade 0:   2 - 2.5 mm
Grade 1:   2.5 - 3 mm
Grade 2:   3 - 3.5 mm
Grade 3:   > 3.5 mm
গ্রেড - ০:  ২ - ২.৫ মিলি
গ্রেড - ১:  ২.৫ - ৩ মিলি (ভালসালভা ম্যানুভারের মাধ্যমে বুঝা যায়)
গ্রেড - ২: ৩ - ৩.৫ মিলি (ভালসালভা ম্যানুভার ছাড়াও বুঝা যায়)
গ্রেড - ৩: ৩.৫ মিলি এর বেশি (এমনিতেও ভালো বুঝা যায়)
এর উপরেও গ্রেডিং করা হয়ে থাকে - গ্রেড ৪, গ্রেড ৫....। তবে ৩ গ্রেডই সমস্যা অত্যধিক তীব্রতর বলে বিবেচিত করা হয়। আল্ট্রাসনোগ্রাম করার সময় চিকিৎসক আপনাকে শ্বাস নিয়ে নিচের দিকে চাপ দিতে বলবেন যাকে আমরা Valsalva Maneuver বলে থাকি। এটি করার সময় আপনার চিকিৎসক স্ফীত শিরাগুলি নির্ণয় করবেন। সাধারণত এই প্রক্রিয়ার সময় আক্রান্ত শিরা স্বাভাবিক শিরা থেকে ৩ মিলি প্রশস্ত হয়ে থাকে। ভেরিকোসিলে আক্রান্ত হলে আপনার চিকিৎসক বন্ধ্যাত্বের সমস্যায় আক্রান্ত হয়েছেন কিনা সেটা বুঝার জন্য সিমেন টেস্টও দিতে পারেন।
Dr Imran
ডাঃ দেলোয়ার জাহান ইমরান
ডিএইচএমএস, ডিএমএস, বিএসসি এন্ড এমএসসি; ঢাকা
রেজিস্টার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক (রেজিঃ নং-৩৩৪৪২)
যোগাযোগঃ আনোয়ার টাওয়ার, আল-আমিন রোড, কোনাপাড়া, যাত্রাবাড়ী-ডেমরা রোড, ঢাকা।
Phone: +88 01671-760874; 01977-602004 || E-mail : delowaridb@gmail.com
About Me: Profile ➤ Facebook ➤ YouTube ➤